শাহবাগি স্কিযোফ্রেনিয়া প্রসঙ্গে

শাহবাগির দল বাংলা পরীক্ষা শেষ করে এখন ইংরেজি পরীক্ষা শুরু করসে। কাদের মোল্লার ফাঁসি হইসে, এখন শুরু হইসে পাকিস্তানের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন ও পাকি পণ্য বর্জন। শাহবাগিদের এই ক্রমাগত উম্মাদনার এখন ট্রিটমেন্ট দরকার। আর ট্রিটমেন্ট শুরু করার প্রথম ধাপ হইলো রোগ চিহ্নিত করা। জনস্বার্থে আমি আগায়া আসলাম যৎসামান্য অবদান রাখতে  আপনারা জানেন এইটা আমার পুরানা অভ্যাস।

স্কিযোফ্রেনিয়া। উইকি অনুযায়ী এইটা একটা মেন্টাল ডিজঅর্ডার। থট প্রসেস এ ব্রেকডাউন ঘটে, যার ফলে এলোমেলো ইমশনাল রেসপন্স শুরু হয়। যেমন কেউ পাছায় লাথি দিলে মোম্বাত্তি জ্বালায়া বসে থাকে। অথবা কান মলা দিলে বেলুন উড়ানো শুরু করে।  Continue reading

ব্যারিষ্টার আবদুর রাজ্জাক প্রসঙ্গে শাহবাগি মিথ্যাচার

মানুষের মন খুব বিচিত্র একটা জিনিস। কখনো ভাবিনি কালেকটিভলি শাহবাগিদের জন্য করুণা অনুভব করবো। কিন্তু ব্যারিষ্টার আবদুর রাজ্জাকের অসুস্থতা/মৃত্যু সংক্রান্ত মিথ্যা খবর ছড়ানো, এবং গুজব ধরা খাওয়া পরবর্তী শাহবাগি আস্ফালন/ব্যাখ্যার বহর দেখে ঠিক তাই ঘটলো।

আশ্চর্যজনকভাবে এই প্রথমবারের মতো তাদের অবস্থা দেখে কোন কৌতুক অনুভব করলাম না। কোন রাগও হলো না। একবার শুধু মনে হলো যদি পাশে বসিয়ে মাথায় একটু হাত বুলিয়ে দিতে পারতাম। যদি শুখার সাথে সবজি সুষম পরিমিাণে মিশিয়ে একটা ষ্টিক বানিয়ে দিয়ে স্নেহভরে বলতে পারতাম, “আহারে বেচারা, কত কষ্ট করতেসে ডেষ্টিনড টু ডুম শাহবাগি বেকুবের দল”!!!  Continue reading

জাফর ইকবালের মিথ্যা বলার অধিকার

আজ সারাদিন যতবার ইন্টারনেটে বসেছি বারবার ঘুরে ফিরে চোখের সামনে এসেছে জাফর ইকবালের লেখা “মিথ্যা বলার অধিকার”। বিপক্ষের বিভিন্ন বিশ্লেষণ, কখনো উপহাস দেখেছি। উনার কাল্টের সদস্যদের বিভিন্নরকম ত্যানা পেঁচানো ফ্যালাসিও দেখেছি। জাফর ইকবাল গ্রহণযোগ্য না অগ্রহণযোগ্য, সে বিতর্কে যাওয়ার আগে বরং অবিসংবাদিত সত্য হলো জাফর ইকবাল বর্তমান বাংলাদেশের হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা। বাঁশি বাজাতে বাজাতে ইঁদুরের পালকে এই ভদ্রলোক নিয়তির দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। হাজারো ইঁদুরের একজন ইঁদুর হয়ে আমিও আমার কথাগুলো লিখে রাখছি।

আমি একসময় জাফর ইকবালকে বলতাম নবী। Continue reading